আজ জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস

আজ ২২শে অক্টোবর, বৃহষ্পতিবার, “জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস, ২০২০”। সড়ক নিরাপত্তা ব্যবস্থার উন্নতি ও জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সরকার ২২শে অক্টোবর তারিখকে “জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস” হিসেবে ঘোষণা করেছে। এ বছর করোনা পরিস্থিতির কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চতুর্থ বারের মতো দিবসটি পালিত হতে যাচ্ছে। এ দিবসটি উদযাপনের মাধ্যমে সড়ক নিরাপত্তার ক্ষেত্রে নতুন মাত্রা যুক্ত হয়েছে। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গলী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে সড়ক নিরাপদ রাখার দৃঢ় প্রত্যয়ে এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় “মুজিব বর্ষের শপথ, সড়ক করবো নিরাপদ”।

একটি দেশের টেকসহ অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নে উন্নত পরিবহন সেবা অপরিহার্য। আধুনিক সড়ক পরিবহন ব্যবস্থাপনার অন্যতম বিবেচ্য বিষয় হচ্ছে সড়ক দুর্ঘটনা কমিয়ে আনার মাধ্যমে জীবন ও সম্পদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা। জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) ২০৩০ এর অনুসমর্থনকারী হিসেবে বাংলাদেশ সড়ক নিরাপত্তা ব্যবস্থার উন্নতি সাধনের মাধ্যমে ২০৩০ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে নিরাপদ, সাশ্রয়ী, সুলভ ও টেকসই পরিবহন ব্যবস্থায় সকলের প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করার জন্য অঙ্গীকারাবদ্ধ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ ও প্রাজ্ঞ নেতৃত্বে এসডিজির -এ অঙ্গীকার বাস্তবায়নে বাংলাদেশ বদ্ধপরিকর।

বর্তমান সরকার দেশের উন্নত সড়ক যোগাযোগ অবকাঠামো নির্মাণে ব্যাপক কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে রাস্তাঘাট, ব্রিজ-কালভার্ট, ফ্লাইওভার ও ওভারপাস নির্মাণ, পুননির্মাণ ও মেরামত করা হয়েছে। বিভিন্ন মহাসড়ক চারলেনে উন্নীত করা হয়েছে। নেয়া হয়েছে পদ্মা সেতু ও মেট্রোরেল নির্মাণের মতো মেগা ও অত্যাধুনিক প্রকল্প। এছাড়াও সড়কে যানবাহন চলাচলে অধিকতর শৃঙ্খলা আনয়নে সরকার “সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮” প্রণয়ন করেছে। এ সকল কার্যক্রম গ্রহনের ফলে সমৃদ্ধ হচ্ছে টেকসই, নিরাপদ ও মান সম্পন্ন সড়ক অবকাঠামো এবং সমন্বিত আধুনিক গণ-পরিবহন ব্যবস্থাপনা। সড়ক পরিবহন সেক্টরে এ গুণগত পরিবর্তন সাধনের ফলে দেশের অধিকাংশ যাত্রী এবং পণ্য মহাসড়ক পথে পরিবহন করা হচ্ছে যা নিঃসন্দেহে ইতিবাচক।

নিরাপদ সড়ক ব্যবহারে জনসচেতনতা বৃদ্ধি করা অত্যন্ত কার্যকরী পদক্ষেপ। সড়ক দুর্ঘটনা রোধে যানবাহনের মালিক, চালক, পথচারী, যাত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে এ বিষয়ে সচেতন হওয়া প্রয়োজন। সরকার সড়ক দুর্ঘটনা হ্রাসে ট্রাফিক আইন মেনে চলা এবং সচেতন করার জন্য নিয়মিতভাবে সভা, ওয়ার্কশপ, প্রশিক্ষণসহ নানামুখী জনসচেতনতামূলক কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছে। পাশাপাশি, এটি লক্ষনীয় যে, সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে সরকারের গৃহীত কর্মসূচির পাশাপাশি বিভিন্ন বেসরকারী সংঘটনসমুহ নানা কর্মসূচি নিয়ে এগিয়ে এসেছে।  ফলে সরকার ও জনগণের স্বতস্ফুর্ত ও সমন্বিত ভূমিকার কারণে দুর্ঘটনার হার ক্রমান্বয়ে হ্রাস পাচ্ছে। রক্ষা পাচ্ছে মানুষের জীবন ও সম্পদ।

প্রিয় পাঠক, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে দৃঢ় প্রত্যয়ী এবং অপ্রতিরোধ্য আমাদের প্রিয় বাংলাদেশ। মহান মুক্তিযুদ্ধে সংগ্রাম করে আমরা জয়লাভ করেছি। করোনার এই সংকটকালের মাঝেও আমরা এগিয়ে যেতে চাই মুক্তির চেতনা লালন করে। “জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস, ২০২০” উপলক্ষে আসুন আমরা সকলে আবারো সচেতন হই নিজ নিজ অবস্থানে। মেনে চলি সড়ক পরিবহন আইন, নিরাপদ রাখি সড়ক, দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা করি আমরা আমাদের সকলকে। মুজিব বর্ষে নিরাপদ সড়ক হোক আমাদের অঙ্গীকার।


গ্রন্থণাঃমোঃ জালাল উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী, এসিস্ট্যান্ট ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ, বাংলাদেশ পুলিশ, পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স, ঢাকা।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Copyright © 2020 |Traffic FM Privacy Policy|Site Edited by Deputy Director (Traffic) | Maintained By Director (Traffic) | Supervised By DDG(Programme), Bangladesh Betar | Developed By SA Web Service