মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সাফল্যের এক যুগ

আজ ৭ই জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকারের টানা এক যুগ পূর্তি হল আজ। ২০০৮ খ্রিস্টাব্দের ২৯শে ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘দিন বদলের সনদ রূপকল্প ২০২১’ নিয়ে শুরু হয়ে ছিল এই দূর্বার যাত্রা। দেশের জনগণ নিরঙ্কুশভাবে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগকে জয়যুক্ত করে। একইভাবে দেশের জনগণ ২০১৪ খ্রিস্টাব্দের ৫ই জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও ২০১৮ খ্রিস্টাব্দের ৩০শে ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে পুনরায় ভোট দিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির চলমান অগ্রযাত্রাকে  রাখে সমুন্নত। এরই ফলশ্রুতিতে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের জনগণের আস্থা, সমর্থন ও সহযোগিতা নিয়ে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে টানা এক যুগ দায়িত্ব পালন করছেন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার ধারাবাহিকভাবে গত ১২ বছরে দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতির সব সূচকে যুগান্তকারী মাইলফলক স্পর্শ করেছে। পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের পথ ধরেই তাঁর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে নিয়ে যাচ্ছেন উন্নয়নের মহাসোপানে। খাদ্যে সয়ংসম্পূর্ণ আজ বাংলাদেশ। বিদ্যুৎ উৎপাদনে অভুতপূর্ব সাফল্য বাংলার প্রতিটি ঘরকে করেছে আলোকিত, তথ্য প্রযুক্তি সেবা আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে দেশকে পরিচিত করেছে ডিজিটাল বাংলাদেশে। সকলের জন্য স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করার মধ্য দিয়ে সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষমাত্রা এমডিজি অর্জন শেষে  বাংলাদেশ আজ টেকসই উন্নয়ন লক্ষমাত্রা অর্জনের পথে এগিয়েছে বহুদূর। দেশে কর্মসংস্থান সৃষ্টি, মানুষের জীবনমান উন্নয়ন, নারীর ক্ষমতায়নসহ অভুতপূর্ব সাফল্যের নেতৃত্বে থাকা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুজিব বর্ষে অঙ্গীকার করেছেন দেশে গৃহহীণ থাকবে না কোন পরিবার। নিশ্চিত করেছেন মুক্তিযোদ্ধা, বয়স্ক ও দুস্থ্য ভাতা।

বিশ্ব জুড়ে চলমান কোভিড-১৯ এক মহামারির নাম। এ মহামারিকেও ধৈর্য বিচক্ষণতা আর সাহসিকতার সঙ্গে মোকাবেলা করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ফলে, করোনাভাইরাস মোকাবেলার সাফল্যে বিশ্বের বিশতম এবং এ উপমহাদেশের প্রথম স্থান অধিকারী দেশ বাংলাদেশ। করোনার এই মহামারির মধ্যেও প্রতিটি ক্ষেত্রে রেকর্ড গড়ছে বাংলাদেশ। দারুণ গতিতে আসছে রেমিট্যান্স। ২০২০ খ্রিস্টাব্দে ২ হাজার ১৭৪ কোটি ১৮ লাখ (২১ দশমিক ৭৪ বিলিয়ন) ডলার রেমিট্যান্স দেশে এসেছে, যা আগের বছরের চেয়ে ২০ শতাংশ বেশি। রিজার্ভের ক্ষেত্রেও সৃষ্টি হয়েছে রেকর্ড। সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের পরিমাণ অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে বেশি। আইএমএফের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২০ খ্রিস্টাব্দে বাংলাদেশের সম্ভাব্য মাথাপিছু জিডিপি ৪ শতাংশ বেড়ে হতে পারে ১ হাজার ৮৮৮ ডলার।

ষাটের দশক থেকে এদেশের মানুষ পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের কথা শুনে এলেও বাংলাদেশ পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের যুগে প্রবেশ করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে ২০১০ খ্রিস্টাব্দে। পাবনার ঈশ্বরদীতে দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে ব্যয়বহুল ২ হাজার ৪০০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুৎ কেন্দ্রটির উৎপাদনে আসার কথা রয়েছে ২০২৪ খ্রিস্টাব্দে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে দিনে দিনে পদ্মা সেতু পূর্ণাঙ্গ রূপ পেতে শুরু করেছে। ইতিমধ্যে বসানো হয়েছে পদ্মা সেতুর সবগুলো স্প্যান। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, জার্মানির মতো বাংলাদেশের মানুষও চড়বে মেট্রোরেলে। পূরণ হতে চলেছে বাঙালীর সেই স্বপ্নও। মেট্রোরেল, পদ্মা সেতু, ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে ও কর্ণফুলী নদীর তলদেশ দিয়ে নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধু টানেলের কাজ এগিয়ে চলেছে। এই চার মেগা প্রকল্প আগামী বছরের জুনের মধ্যে উদ্বোধন করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে বুলেট ট্রেন যোগাযোগের পরিকল্পনাও করছে বর্তমান সরকার। বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলসহ ঢাকা থেকে দক্ষিণাঞ্চলে যেতে ঢাকা-মাওয়া চার লেনের সড়কটিও শেষ হয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সমস্ত চ্যালেঞ্জ নিয়ে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার, যুদ্ধাপরাধের বিচার কাজ যেমন সম্পন্ন করে চলেছেন, তেমনি ছিটমহল সমস্যার সমাধান, সমুদ্রসীমানা বিরোধেরও নিষ্পত্তি করেছেন। ফলে বিশ্ব সভায় বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল।

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভুষিত হয়েছেন “মাদার অব হিউম্যানিটি” উপাধিতে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রজ্ঞা, দৃঢ়তা, সাহসিকতা, সততা ও কর্মনিষ্ঠা আজ বিশ্ব নন্দিত। দেশের আপামর জনগণের ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস ও শতভাগ সমর্থন আর আস্থার কারণেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এ সফলতা অর্জন সম্ভব হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এই ধারাবাহিকতা ধরে রেখে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আওয়ামী লীগ সরকারের আগামীর পথ চলা অব্যাহত থাকবে অপ্রতিরোধ্য বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে, এমনটাই এমন সুন্দর দিনে প্রত্যাশা সকলের।


Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Copyright © 2020 |Traffic FM Privacy Policy|Site Edited by Deputy Director (Traffic) | Maintained By Director (Traffic) | Supervised By DDG(Programme), Bangladesh Betar | Developed By SA Web Service